22 ফেব্রুয়ারি 2024

শিশুশ্রম থেকে শিক্ষার আলো

২০১৭ সাল। মায়ানমার থেকে বাবা-মা ও ভাইবোনদের সাথে নূর যখন পালিয়ে আসে, তখন তার বয়স মাত্র ৭ বছর। সেই থেকেই কক্সবাজারের বিস্তৃত শরণার্থী শিবিরে বসবাস তার। যেখানে বাস্তুচ্যূতিই নিয়মিত বাস্তবতা, সেখানে শিশুশ্রমও অনেক রোহিঙ্গা পরিবারের জন্য অতিসাধারণ বিষয়। রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের শিশুদের প্রতি সহিংসতার বিষয়টি লোকচক্ষুর বাইরে রাখা হলেও সেখানে এটি খুবই সাধারণ…, বহুমুখী কেন্দ্রে কেস ওয়ার্কারের সাথে কথা বলছে নূর।, UNICEF Bangladesh/2023/Sujan Nur speaks with case workers at the multi-purpose centre., বহুমুখী কেন্দ্রে কেস ওয়ার্কারের সাথে কথা বলছে নূর।, UNICEF Bangladesh/2023/Sujan Nur speaks with case workers at the multi-purpose centre. Nur speaks with case workers at the multi-purpose centre. “সালাউদ্দিন যখন বাড়িতে এসে আমার বাবা মায়ের সাথে কথা বললেন, তারপর থেকে আমার বাবা মারধোর করা বন্ধ করে দেন, এখন তিনি আমার খুবই যত্ন করেন”, হাসি মাখা মুখে কথাগুলো বলছিলো নূর। “যখন আমার বাবা জানতে পারলেন যে,…
01 জুন 2023

কোভিড-১৯ এর কারণে বন্ধ থাকা স্কুল খোলার পর ১০ বছর বয়সী সোহানা আবার পড়তে শেখে

চার সন্তানের মধ্যে সবার ছোট ১০ বছর বয়সী সোহানার ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা তার বড় ভাইবোনদের চেয়ে অনেক ভালো। এক সময় তাদের স্কুল ছেড়ে দিতে হয়েছিল। সোহানা একটি বড় জীবনের স্বপ্ন দেখে। বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ময়মনসিংহে ছোট্ট গ্রামের বাড়িতে যে অবস্থায় থাকে তার চেয়ে অনেক বড় জীবনের স্বপ্ন দেখে সে। "আমি একজন চিকিৎসক হতে চাই," সোহানা বলে।  বাংলাদেশ এবং এর বাইরে…, বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ময়মনসিংহে নিজেদের বাড়িতে সোহানা ও তার বাবা-মা।, UNICEF/UN0848190/Mawa A long pandemic school closure kept Shohana at home for too long, with little recollection of what she learnt in school., দীর্ঘ মহামারির কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় সোহানাকে অনেক দিন বাড়িতে থাকতে হয়, যার কারণে স্কুলে সে যা শিখেছিল তার খুব কমই মনে ছিল।, UNICEF/UN0848199/Mawa Shohana and her parents at home in Mymensingh, northeast Bangladesh., বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ময়মনসিংহে নিজেদের বাড়িতে সোহানা ও তার বাবা-মা।, UNICEF/UN0848191/Mawa Shohana and her parents at home in Mymensingh, northeast Bangladesh. A long pandemic school closure kept Shohana at home for too long, with little recollection of what she learnt in school. Shohana and her parents at home in Mymensingh, northeast Bangladesh., একটি সময়োপযোগী পদক্ষেপ, বাংলাদেশে স্কুল বন্ধ হওয়ার সময় সোহানা দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল এবং মহামারির বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার পর চতুর্থ শ্রেণিতে উঠবে বলে আশা করা হয়েছিল। করোনা মহামারির বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার পর শিশুরা যখন স্কুলে ফিরে যায় তখন তাদের মধ্যে পড়াশোনার ঘাটতির বিষয়টি একেবারে স্পষ্ট ছিল। সোহানার শিক্ষক বলেন, যে সময় শিশুদের বাক্য তৈরি করা শেখার কথা তখন তাদের…, বাড়ি থেকে তার স্কুল মাত্র দশ মিনিটের পথ।, UNICEF/UN0848201/Mawa Shohana enjoys the morning ritual with her mother braiding her hair before school., সোহানা সকালের রীতি উপভোগ করে যখন তার মা স্কুলে যাওয়ার আগে তার চুল বেঁধে দেয়।, UNICEF/UN0848192/Mawa As her performance improves, Shohana is becoming more confident in class., তার পারফরম্যান্সের উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে সোহানা ক্লাসে আরও আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠছে।, UNICEF/UN0848198/Mawa As her performance improves, Shohana is becoming more confident in class., তার পারফরম্যান্সের উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে সোহানা ক্লাসে আরও আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠছে।, UNICEF/UN0848200/Mawa Her school is just a ten-minute walk from home. Shohana enjoys the morning ritual with her mother braiding her hair before school. As her performance improves, Shohana is becoming more confident in class. As her performance improves, Shohana is becoming more confident in class. সোহানার মা বলেন, যদিও তিনি নিজে পড়তে পারেন না,…, শিক্ষার সংকট মোকাবিলা করা, কোভিড-১৯ মহামারির আঘাতের আগেও বাংলাদেশে একটি "শিক্ষার সংকট" ছিল। ২০১৭ সালের মূল্যায়ন অনুসারে, দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণির অর্ধেকেরও কম শিশু পড়তে পারা ও গাণিতিক সমস্যা সমাধানে দক্ষ ছিল। ২০২১ সালের একটি শিক্ষা জরিপে মহামারির পরেও শিক্ষার সংকট অব্যাহত থাকার বিষয়টি উঠে আসে, তবে শিক্ষায় উল্লেখযোগ্য ক্ষতির বিষয়টি নেই। ইউনিসেফ বাংলাদেশের শিক্ষা প্রধান দীপা…, তার পারফরম্যান্সের উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে সোহানা ক্লাসে আরও আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠছে।, UNICEF/UN0848193/Mawa The set-up in the learning centre helps teachers to address children’s specific needs., শিক্ষা কেন্দ্রের কাঠামো শিশুদের সুনির্দিষ্ট প্রয়োজন মেটাতে শিক্ষকদের সাহায্য করে।, UNICEF/UN0848195/Mawa The set-up in the learning centre helps teachers to address children’s specific needs., শিক্ষা কেন্দ্রের কাঠামো শিশুদের সুনির্দিষ্ট প্রয়োজন মেটাতে শিক্ষকদের সাহায্য করে।, UNICEF/UN0848194/Mawa The set-up in the learning centre helps teachers to address children’s specific needs., শিক্ষা কেন্দ্রের কাঠামো শিশুদের সুনির্দিষ্ট প্রয়োজন মেটাতে শিক্ষকদের সাহায্য করে।, UNICEF/UN0848196/Mawa As her performance improves, Shohana is becoming more confident in class. The set-up in the learning centre helps teachers to address children’s specific needs. The set-up in the learning centre helps teachers to address children’s specific needs. The set-up in the learning centre helps teachers to address children’s specific…, শিশুদের আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে স্কুলে ফিরতে সাহায্য করা, ক্যাচ-আপ ক্লাসগুলো এমনকি মহামারিজনিত স্কুল বন্ধের প্রভাবের বাইরেও কার্যকর। যদিও বাংলাদেশ চমকপ্রদভাবে প্রাথমিক শিক্ষায় সর্বজনীন আওতার কাছাকাছি অবস্থা অর্জন করেছে, প্রাথমিক স্কুলে যাওয়ার বয়সী শিশুদের ৯৭ শতাংশই স্কুলে যায়, তবে অনেক শিশু প্রকৃতপক্ষে স্কুলে উপস্থিত হয় না। প্রায় ১৭ শতাংশ প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ঝরে পড়ে। ইউনিসেফ ও ফরেন কমনওয়েলথ এন্ড…
16 মার্চ 2023

সার্ভে অন চিলড্রেন’স এডুকেশন ইন বাংলাদেশ ২০২১

প্রকাশিত ‘ন্যাশনাল সার্ভে অন চিলড্রেন’স এডুকেশন ইন বাংলাদেশ ২০২১’ শীর্ষক জরিপ প্রতিবেদনে শিশুদের লেখাপড়ার ওপর স্কুল বন্ধ থাকার প্রভাব উঠে এসেছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো ও ইউনিসেফ যৌথভাবে জরিপটি পরিচালনা করে। জরিপে দেখা যায়, কোভিড-১৯ এর সময় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রান্তিক পর্যায়ের শিশুরা, যাদের ইন্টারনেট ও টেলিভিশন ব্যবহারের সুযোগ সীমিত এবং যাদের বাড়িতে কম্পিউটার বা স্মার্টফোনের মত সহায়ক ডিভাইসের অভাব রয়েছে। তাছাড়া, শহর এলাকার শিশুদের (২৮.৭ শতাংশ) তুলনায় গ্রামীণ এলাকায় কম সংখ্যক শিশু (১৫.৯ শতাংশ) দূরশিক্ষণ ক্লাসে অংশগ্রহণ করে। বড় ধরনের ভৌগোলিক বৈষম্যের বিষয়টিও জরিপে উঠে এসেছে, যেখানে দেখা গেছে, দূরশিক্ষণ কার্যক্রমে অংশগ্রহণের হার সবচেয়ে বেশি ছিল খুলনা ও ঢাকায় (যথাক্রমে ২৩.৪ শতাংশ ও ২৩.১ শতাংশ) এবং সবচেয়ে কম ছিল ময়মনসিংহে (৫.৭ শতাংশ)। সবচেয়ে কম বয়সী শিশুরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতির শিকার হয়েছে। দূরশিক্ষণ ক্লাসে অংশগ্রহণের হার মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের (নিম্ন মাধ্যমিকে ২০.৩ শতাংশ ও উচ্চ মাধ্যমিকে ২৩.৭ শতাংশ) তুলনায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুদের ক্ষেত্রে (১৩.১ শতাংশ) ছিল কম।
16 জুন 2022

শিক্ষা

চ্যালেঞ্জ, সকল শিশু ও কিশোর-কিশোরীকে সহজলভ্য ও মানসম্মত শিক্ষা প্রদানের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ বেশ কিছু প্রতিবন্ধকতা বা চ্যালেঞ্জের সম্মুখিন হচ্ছে। তিন থেকে পাঁচ বছর বয়সী শিশুদের মধ্যে মাত্র ১৯ শতাংশ প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিতে পারে। যদিও মেয়ে এবং ছেলেদের প্রাথমিক পর্যায়ে ভর্তির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্য প্রায় সার্বজনীন, প্রাপ্ত তথ্য যে ইঙ্গিত…, আরও জানার জন্য, সমাধান, বাংলাদেশকে যদি মধ্য আয়ের দেশে উত্তীর্ণ হওয়ার লক্ষ্য অর্জন করতে হয়, তাহলে মৌলিক সাক্ষরতা এবং সংখ্যাগত দক্ষতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি লক্ষ লক্ষ শিশুর শিক্ষা কার্যক্রম থেকে ঝরে পড়া বা স্কুল থেকে বাদ যাওয়ার রাশ টেনে ধরতে হবে। একারণেই অন্তর্ভুক্তিমূলক, প্রাসঙ্গিক এবং সহজে গ্রহণ করা যায় এমন একটি শক্তিশালী শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তুলতে ইউনিসেফ বাংলাদেশ…
24 মে 2022

পড়াশোনা চালিয়ে যেতে বন্যার পানি পাড়ি দেয় এমা

কয়েক বছরের মধ্যে সিলেট-সুনামগঞ্জ অঞ্চলে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যায় বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়েছে, ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে এবং এ অঞ্চলের পাঁচটি জেলায় গ্রামাঞ্চলের মধ্যকার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ল্যাট্রিনগুলো তলিয়ে যাওয়ায় সেখান থেকে কূয়া ও পানি সরবারহের অন্যান্য আধারগুলি দূষিত হয়ে গেছে। এই পরিস্থিতি শিশু ও তাদের পরিবারকে বিশুদ্ধ পানি পাপ্তির সুযোগ থেকে…, অস্থায়ী শ্রেণিকক্ষ, শিক্ষকরা ব্যক্তিগতভাবে বাড়িতে পাঠদানের মাধ্যমে দুর্যোগের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন। কিন্তু এর মানে শিক্ষার্থীদের বন্যার পানি পেরিয়ে পড়তে আসতে হয়। পানিতে ডুবে যাওয়ার ভয় উপেক্ষা করে প্রতিদিন সকালে ক্লাসে যেতে হাঁটু পর্যন্ত পানির মধ্য দিয়ে হেঁটে যায় এমা। শিক্ষকের কাছে পৌঁছুতে তার জামা- পায়জামা ভিজে যায়। তাই সে ভেজা কাপড় বদলে ফেলার…, পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইউনিসেফের কার্যক্রম, শিশু ও তাদের পরিবার যাতে বিশুদ্ধ পানি ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার উপকরণগুলো পায় তা নিশ্চিত করতে ইউনিসেফ পানি, সাবান, পানি পরিশোধন ট্যাবলেট, জেরি ক্যান, স্যানিটারি ন্যাপকিন ও বালতিসহ স্যানিটেশন উপকরণ সরবরাহ করে সরকারকে সহায়তা দিচ্ছে। ইউনিসেফ আগে থেকেই ৬-১০ বছর বয়সী শিশুদের জন্য জরুরি শিক্ষা উপকরণও প্রস্তুত রেখেছে, যার মাধ্যমে অবিলম্বে ১০ হাজারেরও…
16 সেপ্টেম্বর 2021

কোভিড -১৯ কালে স্কুলে ফেরার ক্ষেত্রে আপনার সন্তানের মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে সহায়তা

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দৈনন্দিন জীবনে বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি করেছে এবং শিশুরা এসব পরিবর্তন গভীরভাবে অনুভব করছে। স্কুলে ফিরে যাওয়ার বিষয়টি শিশুদের জন্য শুধু আনন্দেরই নয়; বরং অনেক শিক্ষার্থীর জন্য এটি উত্তেজনাপূর্ণও বটে। তবে, কিহু কিছু শিশুর জন্য বিষয়টি আবার উৎকণ্ঠা ও ভীতির সৃষ্টি করে। পুনরায় স্কুল শুরু করার সময় আপনার শিশু যেসব জটিল অনুভূতির…, আমার সন্তান স্কুলে ফিরে যেতে ভয় পায়। সে যেন স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে সেজন্য আমি তাকে কীভাবে সাহায্য করতে পারি?, শুধুমাত্র বিশ্বব্যাপী মহামারীর সময়ই নয়, এমনকি সাধারণ সময়েও স্কুল শুরু করা বা নতুন শিক্ষা বছর শুরু করা শিশুদের মধ্যে মানসিক চাপ তৈরি করতে পারে। যে বিষয়টা আপনার সন্তানকে উদ্বিগ্ন করতে পারে সে বিষয়ে খোলাখুলি আলাপ আলোচনার মাধ্যমে তার মধ্যে স্বাচ্ছন্দ্য ফিরিয়ে আনতে পারেন। এছাড়াও উদ্বিগ্ন হওয়াটা তার জন্য যে স্বাভাবিক, সে বিষয়টি তাকে জানাতে পারেন।…, সুরক্ষামূলক পোশাক পরিধান করার ব্যাপারে আমার সন্তানের স্কুল সুপারিশ করছে। এটি আমার সন্তানকে আরও বেশি উদ্বিগ্ন করে তুলছে। তাকে আমার কী বলা উচিত?, সহানুভূতির সাথে এই আলাপ-আলোচনাগুলো চালিয়ে যান। আপনার সন্তানের সাথে কথা বলার সময় আপনি তাকে বলুন যে, করোনাভাইরাস নিয়ে সে যে উদ্বিগ্ন বোধ করছে সেটা আপনি জানেন। তাকে এও বলুন যে, উদ্বেগ এবং আবেগ সম্পর্কে কথা বলার ব্যাপারটিও তাদের জন্য স্বাস্থ্যকর। বিশেষত দৌঁড়ানো বা খেলার সময় মাস্ক পরার বিষয়টিকে শিশুরা যদি অস্বস্তিকর বলে মনে করে, সেক্ষেত্রে তারা…, আতংকিত না করে আমি কীভাবে আমার সন্তানকে স্কুলে সাবধানতা অবলম্বন (যেমন, ঘন ঘন হাত ধোয়া, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা ইত্যাদি) করতে উৎসাহিত করতে পারি? , কোভিড -১৯ এবং অন্যান্য রোগ থেকে শিশুদের নিরাপদ রাখার অন্যতম সেরা উপায় হলো নিয়মিত হাত ধোয়াকে উৎসাহিত করা। এই আলাপ-আলোচনা যেন ভীতিকর না হয়। শেখার বিষয়টিকে মজাদার করতে তাদের পছন্দের গানের সাথে তাল মিলিয়ে গান করুন অথবা একসাথে নাচতে নাচতে শেখান। জীবাণুগুলো অদৃশ্য থাকা সত্ত্বেও সেখানে বিরাজ করতে পারে - এমন বিষয় সম্পর্কে তাদেরকে শেখানো নিশ্চিত করুন।…, আমার সন্তানের যে বন্ধুদের সাথে বেশি সখ্যতা তারা একই দলে না থাকার কারণে সে আরও বেশি বিচ্ছিন্ন বোধ করছে। আমার সন্তান শ্রেণীকক্ষে এবং তার বন্ধুদের সাথে কীভাবে আরো সংযুক্ত থাকতে পারে?, আপনার সন্তানের স্কুল যদি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে শুরু করে, তবে আপনার সন্তান তার বন্ধুদের থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার ব্যাপারে উদ্বিগ্ন হতে পারে। সরকারীভাবে স্কুল খোলার ঘোষণা হবার পরে স্কুলগুলো কখন এবং কীভাবে খোলা হবে সে বিষয়ে আপনার সন্তানেকে জানান এবং স্কুলে ফেরার জন্য প্রস্তুত হতে তাকে সহায়তা করুন। স্কুলগুলোকে আবার বন্ধ করার প্রয়োজন হতে পারে, এমন তথ্য…, আমার সন্তান কীভাবে মানিয়ে নিচ্ছে সেটা আমি কীভাবে যাচাই করতে পারি?, শিশুদের সাথে আলাপের সময় শান্ত এবং সক্রিয় হওয়া গুরুত্বপূর্ণ। তারা কেমন করে সব সামলাচ্ছে তা তাদের মুখ থেকেই শুনুন। তাদের আবেগ নিয়মিত হেরফের হবে এবং সেটাও যে ঠিক আছে, সে বিষয়টি আপনাকে তাদেরকে আশ্বস্ত করতে হবে। একটি নিরাপদ এবং সহায়ক পরিবেশে শিশুদের নেতিবাচক অনুভূতিগুলো প্রকাশে এবং যোগাযোগ স্থাপনে সহায়তা করতে স্কুলে হোক কিংবা বাড়িতে,…, আমার সন্তানের স্কুল পুনরায় শুরু করার জন্য আমার কি কিছু করা উচিত?, স্কুল পুনরায় শুরু করার সময় আপনার সন্তানের স্বাস্থ্য পরীক্ষা  ও তার শিক্ষণ দক্ষতা যাচাই করার পাশাপাশি তার মানসিক চাপ এবং উদ্বেগের লক্ষণগুলোর দিকেও নজর রাখা উচিত। আপনার সন্তানের মানসিক স্বাস্থ্যের উপর কোভিড-১৯ নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। বিষয়টি যে একেবারে স্বাভাবিক এবং মাঝে মাঝে সে ভারাক্রান্ত বোধ করতে পারে এবং এগুলো অস্বাভাবিক কিছু না সে বিষয়টি…, স্কুলে এবং অনলাইনে হয়রানি বিষয়ে আমার সন্তান বেশ উদ্বিগ্ন। সেক্ষেত্রে বিষয়টি নিয়ে আমি কীভাবে তাদের সাথে কথা বলতে পারি?  , ব্যক্তিগতভাবে বা অনলাইনে হয়রানি সম্পর্কে যদি আপনার সন্তান উদ্বিগ্ন হয়, সেক্ষেত্রে তারা যে একা নয় এবং যে কোনো সময় তারা আপনার বা অন্য কোন বিশ্বস্ত প্রাপ্তবয়স্কের সাথে কথা বলতে পারে, সে বিষয়টি তাদেরকে জানানো জরুরি । হয়রানি বিষয়ে আপনি যত বেশি আপনার সন্তানদের সাথে কথা বলবেন, হয়রানির ঘটনা দেখলে বা তারা হয়রানির শিকার হলে, বিষয়টি আপনাকে বলতে তারা ততটাই…
08 ডিসেম্বর 2020

দূরশিক্ষণের অভিজ্ঞতা এবং চ্যালেঞ্জগুলো নিয়ে বাংলাদেশী শিশুদের আলোচনা

কোভিড-১৯ এর কারনে স্কুলগুলো বন্ধ হওয়ায় বাংলাদেশে প্রায় ৪ কোটি ২০ লক্ষ শিশু ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এতে করে দূরশিক্ষণের উপর নির্ভর করা ছাড়া শিক্ষার্থীদের কাছে আর কোনও উপায় নেই। তবে, শিক্ষার্থীদের অনেকেরই ডিজিটাল প্রযুক্তির সুবিধা নেই এবং অনেক ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা ভার্চুয়াল ক্লাসকে তাদের প্রত্যাশা এবং শেখার চাহিদার তুলনায় কম বলে মনে করছে। ইউনিসেফের…, অনলাইন বনাম অফলাইন শিক্ষণ, ১৪ বছর বয়সী শিক্ষার্থী নিশাত তাহিয়া প্রমি জানায়, “শ্রেণিকক্ষের তুলনায় অনলাইন শিক্ষায় প্রয়োজনীয় একাডেমিক দিকনির্দেশনা, মূল্যায়ন এবং মতামত আদান প্রদানের অভাব রয়েছে। দুর্বল ইন্টারনেট সংযোগ, ডেটা শেষ হয়ে যাওয়া এবং বৈদ্যুতিক গোলযোগের কারনে আমাদের ক্লাস প্রায়শই ক্ষতিগ্রস্ত হয়।” স্কুলগুলো দীর্ঘ সময় ধরে বন্ধ থাকার ফলে শিক্ষাক্ষেত্রে যেসব…, অসম প্রবেশাধিকার, ফোকাস গ্রুপে অংশগ্রহণকারী সবাই এ বিষয়ে একমত যে, গ্রামীণ অঞ্চল এবং আর্থ-সামাজিকভাবে পিছিয়ে থাকা বেশিরভাগ শিক্ষার্থীই টেলিভিশন, রেডিও, ইন্টারনেট এবং স্মার্টফোনের মাধ্যমে দূরশিক্ষণের সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করতে পারছে না। কারণ, এসব ডিভাইস ব্যবহার করার সুযোগ অনেকেরই নেই। ইউনিসেফ-আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়নের (আইটিইউ) রিপোর্টে দেখা গেছে যে, বাংলাদেশের…, সমতা তৈরিতে ইউনিসেফ-এর সহায়তা, মহামারীর শুরু থেকেই টেলিভিশন, রেডিও, ইন্টারনেট এবং মোবাইল ফোন সহ একাধিক প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে শিক্ষার সকল ধারা যেমন, আনুষ্ঠানিক, অনানুষ্ঠানিক, ধর্মীয় ও কারিগরি শিক্ষাকে একত্রিত করে দূরশিক্ষণের কৌশল প্রণয়ন এবং এর বাস্তবায়নে ইউনিসেফ বাংলাদেশ সরকারকে সহযোগিতা করেছে। ইউনিসেফ বাংলাদেশের শিক্ষা-বিশেষজ্ঞ ইকবাল হোসেন বলেন, “প্রান্তিক শিক্ষার্থীদের…, সামনের দিকে তাকানো, বিশ্বজুড়ে শিশু এবং তরুণদের জন্য ডিজিটাল দূবিভাজন কমিয়ে আনতে জরুরি পদক্ষেপ নেওয়া দরকার। মহামারী শুরুর আগেও ক্রমবর্ধমান ডিজিটাল ও আন্তঃসংযুক্ত বিশ্বে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার জন্য বড় সংখ্যক তরুণ-তরুণীদের হস্তান্তরযোগ্য, ডিজিটাল এবং উদ্যোক্তা হওয়ার দক্ষতা শিখতে হবে। গিগা উদ্যোগের মাধ্যমে, ইউনিসেফ এবং আইটিইউ-এর লক্ষ্য হলো শিশু ও তরুণ-তরুণীদের…
30 সেপ্টেম্বর 2020

কোভিড-১৯ মহামারির সময়ে বাড়িতে শিশুদের লেখাপড়ার মধ্যে রাখার ৫টি উপায়

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব সারাবিশ্বে পারিবারিক জীবন তছনছ করে দিয়েছে। স্কুল বন্ধ, বাড়িতে বসে অফিসের কাজ, শারীরিক দূরত্ব রক্ষা -- এমন অনেকগুলো নেতিবাচক বিষয় এখন অভিভাবকদের সামনে। এ অবস্থায় ইউনিসেফের গ্লোবাল চিফ অব এডুকেশন রবার্ট জেনকিন্স বাড়িতে থাকা শিশুদের লেখাপড়ার সাথে সংযুক্ত রাখতে পাঁচটি পরামর্শ দিয়েছেন।, ১. আলোচনা করে লেখাপড়ার সূচি পরিকল্পনা করা, অনলাইন, টেলিভিশন ও রেডিওতে বয়সভিত্তিক যেসব শিক্ষা কার্যক্রম চলছে, সেগুলো অনুসরণ করতে লেখাপড়ার একটি সূচি বা রুটিন তৈরির চেষ্টা করুন। শিশুর লেখাপড়া ও খেলার জন্য আলাদা সময় রাখুন। দৈনন্দিন কাজেও শিশুদের জন্য শিক্ষণীয় বিষয় রাখতে পারেন। সম্ভব হলে শিশুদের সঙ্গে আলোচনা করে এসবের পরিকল্পনা করুন। শিশু ও কিশোর বয়সীদের পক্ষে নির্দিষ্ট একটি সময়সূচি বা কাঠামো…, ২. খোলামেলা আলোচনা করুন, শিশুকে বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন করুন। পাশাপাশি, আপনার কাছে অনুভূতি প্রকাশে তাদের উৎসাহিত করুন। মনে রাখবেন, মানসিক চাপ অনুভব করলে শিশু ভিন্ন প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে। তাই শান্ত থাকুন এবং তাদের বোঝার চেষ্টা করুন। শিশুকে ডেকে নিয়ে কোভিড-১৯ বা করোনাভাইরাস সম্পর্কে আলোচনা করুন। বোঝার চেষ্টা করুন, এ বিষয়ে ইতোমধ্যে তারা কতটুকু জানে এবং কি বলে। এরপর পরিষ্কার…, ৩. প্রয়োজনীয় সময় নিন, বাড়িতে শিশুর লেখাপড়া শুরু করুন সংক্ষিপ্ত সেশন দিয়ে। পরে আস্তে আস্তে বড় সেশনে প্রবেশ করুন। আপনার যদি ৩০ মিনিট অথবা ৪০ মিনিটের সেশন করার লক্ষ্য থাকে, তবে ১০ মিনিটের সেশন দিয়ে শুরু করে সেখান থেকে বড় সেশনের জন্য তাদের প্রস্তুত করুন। একই সেশনে অনলাইন বা স্ক্রিনে অবস্থানকালীন সময় এবং অফলাইনের কাজ বা অনুশীলন একত্রিত করুন।  , ৪. অনলাইনে শিশুর সুরক্ষা, শিশুদের লেখাপড়ায় রাখা, খেলায় অংশগ্রহণ ও বন্ধুদের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ রক্ষায় ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম আমাদের একটি সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। কিন্তু অনলাইন সুবিধা শিশুর নিরাপত্তা ও গোপণীয়তা রক্ষায় বড় ঝুঁকিও তৈরি করছে। তাই ইন্টারনেট সম্পর্কে আপনার শিশুর সঙ্গে আলোচনা করুন, যাতে অনলাইনে কীভাবে কাজ করতে হয়, কোন কোন বিষয়ে সাবধানতা প্রয়োজন এবং এই প্ল্যাটফর্মে কি…, ৫. শিশুর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন, শিশুর শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনা, স্কুলের বিভিন্ন তথ্য প্রাপ্তি, কোনো বিষয়ে জানার প্রয়োজন পড়লে অথবা বিভিন্ন নির্দেশনা জানতে স্কুল বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কীভাবে যোগাযোগ রাখবেন তা খুঁজে বের করুন। বাড়িতে থেকে লেখাপড়ার ক্ষেত্রে মা-বাবা অথবা অভিভাবক গ্রুপের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করাও ভালো সমাধান হতে পারে। কোভিড-১৯ মহামারির মধ্যে অভিভাবকদের জন্য আরও…