22 নভেম্বর 2023

বিশ্ব শিশু দিবস: জলবায়ু সংকট নিয়ে কাজ করতে তরুণ শিল্পীদের জন্য অনুপ্রেরণা

বিশ্বজুড়ে যখন বিশ্ব শিশু দিবস উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালিত হচ্ছে, সেসময় ইউনিসেফ তার অংশীজনদের নিয়ে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের শিশুদের জন্য দুই দিনব্যাপী চারু ও কারুকলা বিষয়ক একটি কর্মশালার আয়োজন করে। তরুণ প্রজন্মের মধ্যে সচেতনতা তৈরি ও তাদের ক্ষমতায়নের পথে এগিয়ে নিতে এ আয়োজন করা হয়। কর্মশালাটি পরিচালিত হয় ৯ থেকে ১৫ বছরের শিশুদের জন্য। এর…, ক্যানভাসে উদ্বেগের প্রকাশ, কর্মশালার প্রথম দিনে জলবায়ু সংকটের নানা দিক সৃজনশীলতার সঙ্গে তুলে আনার বিষয়ে ধারণা দেওয়া হয়। এই সেশনে অংশগ্রহণকারী শিশুদেরকে, জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে শিশু হিসেবে তাদের অধিকারগুলো কীভাবে সম্পৃক্ত সে বিষয়ে আলোচনা করা হয়। এক্ষেত্রে অংশগ্রহণমূলক আলোচনা ও অনুশীলন পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়। এর ফলে জটিল বিষয়টি শিশুদের বোধগম্য হয়ে ওঠে এবং তারা নিজেদের…, চিত্র থেকে সমাধান, দ্বিতীয় দিনে শিশুরা তাদের চিত্রকর্মে রঙ দিয়ে সেগুলোকে জীবন্ত করে তোলে। দরদ দিয়ে রঙ করা শিশু শিল্পীদের   স্কেচগুলো কর্মশালাটিকে রঙিন এক প্রদর্শনীস্থলে রূপান্তরিত করে। তাদের প্রতিটি রঙের প্রলেপে পরিবেশ রক্ষায় পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান ফুটে ওঠে। 15-year-old Towhid UNICEF Bangladesh/2023/Sujan “আমি দু’টি পৃথিবী এঁকেছি। একটিতে তুলে ধরা হয়েছে, আমরা গাছ…, পরিবর্তনের বীজ বপণ, কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী শিশুরা তাদের শৈল্পিক দক্ষতার প্রকাশ ঘটানোর উপায় সম্পর্কেই শুধু জেনেছে তা নয়; বরং তারা সম্মিলিতভাবে আমাদের এই ধরণী সুরক্ষায় কার কী করণীয় সে বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা পেয়েছে। পরিবেশের জন্য কাজ করার মানসিকতা তৈরির মাধ্যমে এই কর্মশালায় একটি প্রজন্মের প্রতিনিধিদের মধ্যে এ বিষয়ক বীজ বপণ করা হল। এর ফলে তারা বুঝতে শিখবে যে, জলবায়ু সংকট…
20 জুন 2023

"এখন আমি পা দিয়ে লিখি, আমার চেনাজানা আর কেউ এটা পারে না"

রোহিঙ্গা শিবিরে গত ৩১ মে প্রথমবারের মতো বর্ষ সমাপনী পরীক্ষা দেয় ১৪ বছর বয়সী এহসান। তবে তাঁর এই পরীক্ষা অন্য সহপাঠীদের মতো ছিল না। এহসান হাতের বদলে ডান পা দিয়ে কলম ধরে লিখে পুরো পরীক্ষা দেয়। এক বছর আগে একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় দুই হাত হারায় এহসান। এক সন্ধ্যায় বন্ধুদের সঙ্গে ফুটবল খেলার সময় বিদ্যুতের তার এসে তাদের ওপর পড়ে। এহসান ও তার দুই বন্ধু…, শেখার অদম্য ইচ্ছা, আশ্রয় শিবিরে অবস্থানকালে এহসান নিজের পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য সাধ্যমতো চেষ্টা করে। সে একটি মাদ্রাসায় ভর্তি হয়। একজন প্রাইভেট শিক্ষকের কাছেও পড়তে থাকে। ইউনিসেফ যখন গত বছর শরণার্থী শিবিরে মিয়ানমারের পাঠ্যক্রম অনুযায়ী পড়াশোনা চালু করে, তখন এহসান ইউনিসেফ পরিচালিত একটি শিক্ষাকেন্দ্রেও ভর্তি হয়। সেই স্মৃতি মনে করে এহসান বলে, “নতুন পাঠ্যক্রমে ক্লাস…, স্কুলে ফেরা, এহসান বলে, “আমি আবার যখন হাঁটতে শুরু করলাম, এর সাথে সাথেই আমি জানতাম আমি আবার আমার শিক্ষাকেন্দ্রে ফিরে যেতে চাই। আমার শিক্ষক আমাকে দেখতে এলেন এবং হেঁটে শিক্ষা কেন্দ্রে যেতে আমাকে সহযোগিতা করলেন। এমনকি কীভাবে পা দিয়ে লিখতে হয়, সেটা শিখতে তিনি আমাকে সহযোগিতা করলেন। পা দিয়ে লিখতে শেখা অনেক দীর্ঘ সময় নেয় এবং অনেক কষ্টকরও ছিল। কখনো কখনো বিব্রতকরও হয়ে…
08 ডিসেম্বর 2022

বন্ধুত্বের মাধ্যমে উদ্বেগ দূর হচ্ছে কক্সবাজারের কিশোরীদের

বাংলাদেশের কক্সবাজারের প্রচণ্ড গরমে রুমা খালি পায়ে দক্ষতার সঙ্গে মাঠজুড়ে ছোটাছুটি করে। মাঠটি ফুটবল মাঠ হিসেবে ব্যবহার হয়। তবে এটি একটি প্রকৃত ফুটবল মাঠের আকারের অর্ধেক এবং গোলপোস্টগুলোও তেমনই। মেয়েদের কাউকেই অবশ্য গরম, তাদের খালি পা বা মাঠের আকার নিয়ে চিন্তিত বলে মনে হয় না! তারা দারুণ সময় কাটাচ্ছে। রুমা অনায়াসেই একটি গোল করে। তার দলের…, রুমার জন্য একটি সাপ্তাহিক পুরস্কার, ফুটবল এবং যে সোশ্যাল হাব বা সামাজিক কেন্দ্রে তারা খেলাধুলা করে সেখানে কাটানো দিনগুলো রুমার সপ্তাহের সেরা দিন। এটি অন্যান্য রোহিঙ্গা মেয়েদের ক্ষেত্রেও সত্য, যারা সপ্তাহে অন্তত তিন দিন এই সোশ্যাল হাবে যায়। “আমি এটি পছন্দ করি, কারণ আমরা ভিন্ন কমিউনিটি থেকে এখানে এসে বন্ধুত্ব করতে পারি। আমরা শিশুবিয়ের মতো অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এবং কীভাবে অন্যদের…, অপরপক্ষ যেভাবে জীবনযাপন করে তার প্রশংসা করা, সোশ্যাল হাবগুলো ক্যাম্পের সীমান্তে অবস্থিত এবং রোহিঙ্গা শরণার্থীদের পাশাপাশি আশেপাশের কমিউনিটির বাংলাদেশি কিশোর-কিশোরীদের জন্য বিনোদনের সুযোগ তৈরি করেছে। দুই কমিউনিটির মধ্যে বন্ধুত্ব এবং বোঝাপড়াকে উৎসাহিত করার জন্যই এগুলো বানানো হয়েছে। তবে এখনও বন্ধুত্ব তেমন গাঢ় না হলেও রুমা সবসময় ফুটবল খেলতে এবং বাংলাদেশি কমিউনিটির আরেক বড় ফুটবলার শামসুনের মতো…