কোভিড-১৯ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ দাবি করে বিশ্ব শিশু দিবসে বৈশ্বিক ও স্থানীয় শিরোনামে শিশু ও তরুণরা

21 নভেম্বর 2021
A girl talking
ইউনিসেফ বাংলাদেশ/২০২১/হিমু
বিশ্ব শিশু দিবসে একদিনের জন্য প্রথম আলোর প্রতীকী সম্পাদকের দায়িত্ব নেন শিশু সাংবাদিক রূপকথা রহমান।

নিউইয়র্ক, ২১ নভেম্বর ২০২১ – বিশ্ব শিশু দিবস উপলক্ষে শিশুদের জন্য ও শিশুদের দ্বারা সম্পাদিত ইউনিসেফের বিভিন্ন বৈশ্বিক ও স্থানীয় আয়োজনে শিশু ও তরুণ জনগোষ্ঠীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ, এমন বিষয়গুলোতে তারা আওয়াজ তুলছে এবং জরুরিভিত্তিতে পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানাচ্ছে।

‘ওয়ার্ল্ড এক্সপো’তে শিরোনাম হওয়া থেকে শুরু করে রাষ্ট্রপতিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ, গণবিতর্কে নেতৃত্ব দেওয়া এবং বার্তাকক্ষে থেকে সংবাদ প্রতিবেদন তৈরি করার মাধ্যমে তরুণ জনগোষ্ঠী জলবায়ু, সমতা ও মহানুভবতাসহ বিভিন্ন বিষয়ে কাজ করতে বিশ্বনেতা, ব্যবসায়ী এবং উচ্চ পর্যায়ের তারকাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত হচ্ছে।

ইউনিসেফের অংশীদারিত্ব বিষয়ক উপ-নির্বাহী পরিচালক শার্লট পেত্রি গরনিৎজকা বলেন, “একটি বৈশ্বিক মহামারী, ক্রমবর্ধমান দারিদ্র্য ও সামাজিক অস্থিরতার মধ্যে বিশ্ব শিশু দিবস হচ্ছে আরও ভালোভাবে সবকিছু পুনর্নিমাণে তরুণ জনগোষ্ঠীর অটুট আশা এবং দৃঢ়সংকল্প উদযাপনের একটি সময়। কোভিড-১৯ থেকে পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়ায় শিশু এবং তরুণদের অবশ্যই সিদ্ধান্ত গ্রহণের কেন্দ্রবিন্দুতে রাখতে হবে। আগামী দিনের নেতা হিসেবে আজকের দিনে নেওয়া সিদ্ধান্তে ভূমিকা রাখার অধিকার তাদের রয়েছে।”

এই সপ্তাহে, ইউনিসেফ ও গ্যালাপ আজকের শৈশব বিষয়ে প্রথমবারের মতো আন্তঃপ্রজন্ম জরিপের ফল প্রকাশ করেছে। সেখানে উঠে এসেছে যে, আগের প্রজন্মের তুলনায় এখনকার শিশু ও তরুণ জনগোষ্ঠীর মাঝে এই বিশ্বাস ৫০ শতাংশ বেশি যে, বিশ্ব আরও ভালো বসবাসের জায়গা হয়ে উঠছে। তবে কোভিড-১৯ ও জলবায়ু পরিবর্তনের মতো ক্রমবর্ধমান সংকট মোকাবিলায় পদক্ষেপের ব্যাপারে তারা অসহিষ্ণু।

আরও ভালো একটি বিশ্বের জন্য তাদের আহ্বান শুনতে এবং তা জোরালো করতে রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রী ও ব্যবসায়ীরা ভার্চুয়াল ও সরাসরি অনুষ্ঠানে শিশু ও তরুণ জনগোষ্ঠীর সঙ্গে যোগ দেন, যার মধ্যে রয়েছে:

  • পশ্চিম ও মধ্য আফ্রিকায় ইউনিসেফ জলবায়ু পরিবর্তনকে গুরুত্ব দিয়ে ইয়ুথ ভয়েসেস ফ্রম দ্য সাহেল’ শীর্ষক প্রথম বার্ষিক গণবিতর্ক শুরু করেছে এবং নেতাদের একগুচ্ছ পরামর্শ প্রদানে বিশেষজ্ঞ, রাজনৈতিক অংশীজন, উচ্চ পর্যায়ের ব্যক্তিত্ব এবং ৮-২৫-বছর বয়সী শতাধিক তরুণ-তরুণীকে একত্রিত করে।
  • শিশু এবং তরুণরা বতসোয়ানা, নামিবিয়া, জাম্বিয়া এবং জিম্বাবুয়ের রাষ্ট্রপতিদের সঙ্গে কাজুংগুলা সেতুতে একটি বৈঠকের আয়োজন করে, যেখানে এই চার দেশের সীমান্ত মিলিত হয়। শিশুদের জন্য প্রতীকী সমর্থনের অংশ হিসেবে সেতুটিকে নীল আলোয় আলোকিত করা হয়। ডেনমার্ক, গিনি বিসাউ, গায়ানা, ওমান, তুরস্ক এবং সুইজারল্যান্ড সহ অন্যান্য দেশের রাষ্ট্রপ্রধান, মন্ত্রী ও সরকারের সদস্যরা শিশুদের সাথে সাক্ষাৎ করেন।
  • ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত এবং উচ্চ পর্যায়ের সমর্থকরা শিশুদের অধিকার এবং তরুণদের প্রভাবিত করে, এমন বিষয়গুলো নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে ও সমর্থন আদায় করতে সহায়তা প্রদানে তাদের বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে, যার মধ্যে রয়েছে:
    • ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত মিলি ববি ব্রাউন এই বছরের বিশ্ব শিশু দিবসের ভিডিওতে বড়দের হাতে সব ছেড়ে না দেওয়ার জন্য শিশুদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। চলমান ধারার বিপরীতে গিয়ে ব্রাউন দেখিয়েছেন যে, কীভাবে শিশুদের প্রায়শই বড়দের কাছ থেকে নির্দেশনা শুনতে হয়, এবং এখন বড়দের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শিশুদের কথা শোনার জন্য।
    • চীনে ইউনিসেফের দূত ওয়াং ইউয়ান (রয় ওয়াং) শিশু ও তরুণদের অনুপ্রাণিত করার জন্য একটি নতুন গান প্রকাশ করেছেন।
    • নরওয়েতে ইউনিসেফ দূত পেনেলোপ লিয়া শিশু, তরুণ জনগোষ্ঠী ও সরকারের নেতৃত্বস্থানীয় ব্যক্তিদের সঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তন ও টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক একটি সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন।
  • শিশু অধিকারের বিষয়গুলো তুলে ধরা থেকে শুরু করে ভবন নীল আলোয় আলোকিত করার মাধ্যমে এফসি বার্সেলোনা, জনসন অ্যান্ড জনসন, লেগো গ্রুপ ও লেগো ফাউন্ডেশন, প্যান্ডোরা, জেড জুরিখ ফাউন্ডেশন এবং ইউএন ফাউন্ডেশন সহ ব্যবসা খাত ও সংস্থাগুলো শিশুদের আরও ভালো একটি ভবিষ্যত বিনির্মাণে তাদের সমর্থন দেখিয়েছে।
  • বাংলাদেশ, কলম্বিয়া, ফিজি, গাম্বিয়া, ইন্দোনেশিয়া এবং অন্যত্র শিশু ও তরুণরা তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে প্রতিবেদন করতে বার্তাকক্ষ, সংবাদপত্র ও সম্প্রচার স্টুডিওগুলোর দায়িত্বভার নেয়।
  • শিশু ও তরুণদের অংশগ্রহণের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ইউনিসেফ টিকটক কর্তৃপক্ষের সহায়তায় তরুণ নির্মাতাদের বানানো তার প্রথম বৈশ্বিক টিকটক চালু করেছে। ইয়ুথ অ্যাডভোকেসির ইতিবাচক প্রভাবের ওপর গুরুত্ব দিয়ে 'ওল্ডার সেলফ টক' (#OlderSelfTalk) হ্যাশট্যাগ চালু করে তরুণ প্রজন্মের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এমন চলমান বিষয়গুলো নিয়ে তাদের নিজেদের বৃদ্ধ বয়সের সত্ত্বার সঙ্গে কথোপকথন করতে বলা হয়।
  • ফ্রান্সের আইফেল টাওয়ার, ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবন, নেপালের ধারাহারা টাওয়ার, সংযুক্ত আরব আমিরাতের এক্সপো ২০২০ দুবাই, জিম্বাবুয়ের ঐতিহাসিক ভিক্টোরিয়া ফলস ব্রিজ, পাকিস্তানের লাহোর ফোর্ট, জর্ডানের পেট্রা, চীনের মহাপ্রাচীরের একাংশ, মেক্সিকোতে চিচেন ইতজা, রোমানিয়ার ব্রান ড্রাকুলাস ক্যাসেল এবং বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা, জার্মানি ও পানামার বিভিন্ন ভবন ও স্থাপনাসহ বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন উল্লেখযোগ্য স্থাপনা ও ভবন ঐক্যের প্রতীক হিসেবে নীল আলোয় আলোকিত করা হয়।

এক্সপো ২০২০ দুবাই তরুণদের নেতৃত্বে শিশু দিবস উদযাপনের মাধ্যমে শিশু অধিকারকে সমুন্নত রাখা এবং ইউনিসেফের দূত ও ইয়ুথ অ্যাডভোকেটদের গুরুত্ব দিয়ে নীতিমালা-কেন্দ্রিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। একটি কনসার্টের সময় ইউনিসেফের দুইজন তরুন অ্যাডভোকেট নিয়োগ করা হয়। তারা হলেন, টাইমের 'কিড অব দ্য ইয়ার' গীতাঞ্জলি রাও এবং আমিরাতি শিশু সংসদের সদস্য সাইদ বিন ওমর আলমুতাইওয়েই

এই নিয়োগগুলো ছাড়াও শিশু ও তরুণ জনগোষ্ঠীর কথা তুলে ধরার ক্ষেত্রে সহায়তা প্রদানে বিশ্বজুড়ে ইউনিসেফের ইয়ুথ অ্যাডভোকেট ও তরুণ জাতীয় দূত নিয়োগ করা হয়, যাদের মধ্যে ছিল:

  • বার্বাডোজ: অ্যাশলে ল্যাশলে, ২১; মারিয়া মার্শাল, ১২
  • চীন: ঝাও চেন, ২১; ইয়ু শিনওয়েই, ১৯
  • গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গোসেলিন বানজা, ২৪ (জাতীয় দূত); ইমানুয়েল জিদিসা, ১৪; কেটসিয়া পাসাউ, ১৭
  • ডমিনিকারাসেল রেমন্ড, ১৮
  • গিনি-বিসাউজন উইলিয়াম, ১২ (জাতীয় দূত)
  • আয়ারল্যান্ডবেথ ডোহার্থি, ১৮; রুয়াইরি হলোহান, ১৬
  • মালাভিকিসোমো বান্ডা, ২৩; লিসা বান্ডা, ২২; জাকাত সামবো, ১৯
  • তানজানিয়াগডলিসটেন বোনিফেস ইরুনডে, ১৬; নাবিহা কাসিম, ১৮; নাজমা পাল এনটোবি, ২৩
  • মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসালমা আবদি, ১৭; কারমেল আলশাইবি, ২০; জোয়ে চেন, ১৮; ট্রিসটেমারিয়াম গেসেসি, ১৫; ইশান গয়াল, ১৭; রোহান মেনন ১৬; ঘিড নাফিয়া, ১৭; সুই পার, ১৯; সিদ্ধার্থ সতিশ, ১৬; শ্যারন শেনদারভস্কি, ২০; আয়ান সিদ্দিকি, ১৭; ইশা সিংঘাই, ১৭; সুবহি সিনহা, ২০; অ্যানা স্ট্যাসি, ১৮; ডিয়া থিওডর, ১৮।

প্রতি বছর ২০ নভেম্বর বিশ্ব শিশু দিবস উদযাপিত হয় এবং এবার পঞ্চমবারের মতো উদযাপিত হওয়া এই দিবসের লক্ষ্য পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যসেবা, পুষ্টি, শিক্ষা ও সুরক্ষা পাওয়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত লাখ লাখ শিশুর জন্য সচেতনতা বৃদ্ধি করা এবং তরুণ জনগোষ্ঠীর ভবিষ্যৎ-বিষয়ক যে কোনো আলোচনায় তাদের বক্তব্যকে গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরা।

### 

সম্পাদকদের জন্য নোট:

উচ্চ রেজ্যুলেশনের ছবি ডাউনলোড করুন এখান থেকে

ছবি ও ভিডিও ডাউনলোড করা যাবে এখান থেকে

আরও তথ্য এবং ইউনিসেফ ইয়ুথ অ্যাডভোকেটদের ব্যক্তিগত তথ্য জানতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে। ইউনিসেফের সাবেক ও বর্তমান ইয়ুথ অ্যাডভোকেটদের নিয়োগগুলোও তরুণ শিল্পী এবং ডিজাইনারদের তৈরি ইলাস্ট্রেশনের মাধ্যমে গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরা হয়, যার লক্ষ্য ছিল তাদের সমবয়সীদের গল্প আনন্দদায়ক ও সৃষ্টিশীল উপায়ে তুলে ধরা। ব্লগ ও ইলাস্ট্রেশনগুলো দেখা যাবে আমাদের ভয়েস অব ইয়ুথ ওয়েবসাইটে

গণমাধ্যম বিষয়ক যোগাযোগ

ফারিয়া সেলিম
ইউনিসেফ বাংলাদেশ
টেলিফোন: +8809604107077
ই-মেইল: fselim@unicef.org
হেলেন উইলি
ইউনিসেফ নিউইয়র্ক
টেলিফোন: +19172442215
ই-মেইল: hwylie@unicef.org

ইউনিসেফ সম্পর্কে

প্রতিটি শিশুর অধিকার ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত করতে বিশ্বের ১৯০ টি দেশে কাজ করছে ইউনিসেফ। সকল বঞ্চিত শিশুদের পাশে থাকার অঙ্গীকার নিয়ে আমরা কাজ করি বিশ্বের বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে।

আমাদের কাজ সম্পর্কে আরো জানতে ভিজিট করুন: www.unicef.org/bangladesh

ইউনিসেফের সাথে থাকুন: ফেসবুক এবং টুইটার