কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে অগ্নিকাণ্ডের বিষয়ে বাংলাদেশে ইউনিসেফের প্রতিনিধি মি. শেলডন ইয়েটের বিবৃতি

10 জানুয়ারি 2022
Rohinga Refugee Camp 16, Cox's Bazar
UNICEF/UN0575254/Lateef
শিশু ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর তাৎক্ষণিক এবং জরুরি চাহিদা নিশ্চিত করতে ইউনিসেফ ও সহযোগী সংস্থাগুলো রোববার সন্ধ্যা থেকে মাঠে রয়েছে।

ঢাকা, ১০ জানুয়ারি ২০২২   “বাংলাদেশের কক্সবাজারে গত ৯ জানুয়ারি শরণার্থী শিবিরে আগুন লাগার ঘটনায় ইউনিসেফ গভীরভাবে মর্মাহত। আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হাজার হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীর সহায়তায় ইউনিসেফ তাদের পাশে আছে।

“১৬ নম্বর ক্যাম্পে ছড়িয়ে পড়া আগুনে তিন শতাধিক আশ্রয়কেন্দ্র ধ্বংস হয়েছে এবং আরও ৫০০ আশ্রয়কেন্দ্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্যাম্পের কাছাকাছি থাকা স্থানীয় আশ্রয়দাতা কমিউনিটির ওপরও এর প্রভাব পড়েছে। আগুনে শরণার্থী রোহিঙ্গা শিশুদের জন্য ইউনিসেফ-সহায়তাপুষ্ট দুটি শিক্ষা কেন্দ্র এবং প্রায় ২০০ ‘পানি, পয়নিষ্কাশন ও হাইজিন‘ ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

“অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি এবং আগুনে যারা বাস্তুচ্যুত হয়েছে তারা পার্শ্ববর্তী শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। এ ঘটনায় আহত সাত শিশুকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সহায়তা দেওয়া হচ্ছে।

“শিশু ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর তাৎক্ষণিক এবং জরুরি চাহিদা নিশ্চিত করতে ইউনিসেফ ও সহযোগী সংস্থাগুলো রোববার সন্ধ্যা থেকে মাঠে রয়েছে এবং তাদের জন্য পানি, স্যানিটেশন, জামাকাপড় ও আশ্রয় সামগ্রীর ব্যবস্থা করছে।

“অগ্নিকাণ্ডে আশ্রয়কেন্দ্র থেকে বাস্তুচ্যুত হওয়া শিশুদের নিরাপদে রাখা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করা এবং এই সংকটের সময়ে অন্যান্য ঝুঁকি এড়ানোই এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

“শিশুরা যাতে স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি এবং আঘাত থেকে সুরক্ষিত থাকে- তা নিশ্চিত করা এবং প্রয়োজনীয় মনোসামাজিক সহায়তা প্রদানে ইউনিসেফ ও সকল সহযোগী সংস্থা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় শিশু সহায়তা ডেস্ক স্থাপন শুরু করেছি এবং আমাদের প্রচেষ্টার মাধ্যমে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া দুই শিশুকে পুনরায় তাদের পরিবারের সঙ্গে একত্রিত করা হয়েছে।

“তাছাড়া, এই এলাকার শিশুদের আরও ঝুঁকির মুখে পড়া এবং ধ্বংসাবশেষ সংগ্রহ ও নির্মাণকাজে শ্রমিক হিসেবে তাদের যুক্ত হওয়া প্রতিরোধে আমরা সচেষ্ট আছি।

“রোহিঙ্গা শরণার্থী শিশুদের নিরাপদ শিক্ষার সুযোগ প্রদানে পুড়ে যাওয়া শিক্ষাকেন্দ্র ও শিক্ষা উপকরণগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কেন্দ্রগুলো যাতে চালু করা যায়, তা নিশ্চিত করতে সহযোগীদের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চলছে।

“ইউনিসেফ ওই এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত নলকূপ, ল্যাট্রিন, গোসলের জায়গা ও পানি সংগ্রহের স্থান (ট্যাপ-স্ট্যান্ড) মেরামত কার্যক্রমও শুরু করেছে।

“আমরা স্থানীয় কর্তৃপক্ষ, পরিস্থিতি মোকাবিলায় সম্মুখভাগে নিয়োজিত কর্মী এবং সব সহযোগীকে ধন্যবাদ জানাই, যাদের অক্লান্ত পরিশ্রম আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে।”

###

আরও ছবি ডাউনলোড করুন: https://uni.cf/32X1SnT

গণমাধ্যম বিষয়ক যোগাযোগ

ফারিয়া সেলিম
ইউনিসেফ বাংলাদেশ
টেলিফোন: +8809604107077
ই-মেইল: fselim@unicef.org

ইউনিসেফ সম্পর্কে

বিশ্বের সবচেয়ে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কাছে পৌঁছাতে বিশ্বের কঠিনতম কিছু স্থানে কাজ করে ইউনিসেফ। ১৯০টিরও বেশি দেশ ও অঞ্চলে সর্বত্র সব শিশুর জন্য আরও ভালো একটি পৃথিবী গড়ে তুলতে আমরা কাজ করি।

ইউনিসেফ এবং শিশুদের জন্য এর কাজ সম্পর্কিত আরও তথ্যের জন্য ভিজিট করুন: www.unicef.org.

ইউনিসেফকে অনুসরণ করুন Twitter, Facebook, Instagram এবং YouTube-এ।